BLOG

ব্যাংক খোলা থাকবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত

Bangladesh Bank has directed the banking system to be limited to prevent coronavirus infection. According to the new time, cash can be deposited and withdrawn from 9am to 12pm. Banks will be open until one and a half hours to complete the transaction-related accessory activities.

Bangladesh Bank issued the notification on Tuesday.

According to the notification, banks having online facilities for depositing and withdrawing cash only ensure the overall convenience of transactions of customers, keeping in mind the distance between the branches so that a number of branches can be opened. Without online convenience, the bank’s branches can be opened only for cash deposit and withdrawal. AD branches can be opened only for emergency foreign transactions. In order to facilitate the continuation of transactions through ATMs and cards, sufficient notes should be provided in the ATM booths and necessary arrangements should be made to keep them running continuously.

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সীমিত আকারে ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালু রাখার নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। নতুন সময় অনুযায়ী সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত নগদ জমা ও উত্তোলন করা যাবে। লেনদেন–পরবর্তী আনুষঙ্গিক কার্যক্রম শেষ করার জন্য ব্যাংক খোলা থাকবে বেলা দেড়টা পর্যন্ত।

আজ মঙ্গলবার এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, শুধু নগদ জমা ও উত্তোলনের জন্য অনলাইন সুবিধা থাকা ব্যাংকগুলো গ্রাহকদের লেনদেনের সার্বিক সুবিধা নিশ্চিত করে শাখাগুলোর মধ্যে দূরত্ব বিবেচনায় নিয়ে প্রয়োজনীয়সংখ্যক শাখা খোলা রাখা যাবে। অনলাইন সুবিধা ছাড়া ব্যাংকের শাখাগুলো শুধু নগদ জমা ও উত্তোলনের জন্য খোলা রাখা যাবে। শুধু জরুরি বৈদেশিক লেনদেনের জন্য এডি শাখাগুলো খোলা রাখা যাবে। এটিএম ও কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন চালু রাখার সুবিধার্থে এটিএম বুথগুলোয় পর্যাপ্ত নোট সরবরাহ রাখতে হবে এবং সার্বক্ষণিক চালু রাখার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

করোনাভাইরাসের কারণে ব্যাংকগুলোয় নগদ উত্তোলন ছাড়া অন্য সব ক্ষেত্রে চাপ নেই বললেই চলে। এ কারণে ব্যাংকগুলো শুরু থেকেই সময়সীমা পরিবর্তনের দাবি জানিয়ে আসছিল। ব্যাংকগুলো নিজ উদ্যোগে কর্মী কমিয়েও এনেছে। বেশির ভাগ ব্যাংকেই কর্মীদের দুই ভাগে ভাগ করে অফিস করতে বলা হয়েছে। এবার সীমিত আকারে ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালু রাখার নির্দেশনা দিল বাংলাদেশ ব্যাংক।

করোনাভাইরাসের কারণে গতকাল সোমবার ২৬ মার্চ থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। এর মধ্য ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি থাকবে। এর আগে ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের ও পরে ২৭ ও ২৮ মার্চের সাপ্তাহিক ছুটিও যোগ হবে। এ ছাড়া ৩ ও ৪ এপ্রিল সাপ্তাহিক ছুটি এ ছুটির সঙ্গে যোগ হবে।

Source:https://www.prothomalo.com/

Back to top button
Close